মৎস্য পুরাণ – পৃথ্বীরাজ সেন

যখন প্রলয়কাল আসন্ন হল তখন ভগবান শ্রীহরি সূর্যপুত্র সত্যব্রত মনুকে কৃপা করে দর্শন দিলেন মৎস্যরূপে। শ্রীহরির নিদের্শমতো বিশাল এক নৌকোয় সপ্তর্ষি ও বিভিন্ন প্রকার বীজ সংগ্রহ করে সত্যব্রত তাতে উঠলেন।

মৎস্য পুরাণ - পৃথ্বীরাজ সেন

নৌকা যখন প্রলয়কালে ভীষণভাবে আন্দোলিত, মনুর প্রার্থনায় মৎস্যরূপে ভগবান আবার দেখা দিলেন নিযুত যোজন পরিমিত আকারে। আর তার ইচ্ছায় নৌকার বন্ধন রঞ্জু হিসাবে এল বাসুকী।

সেই সর্পের লেজটিকে রাজা নৌকায় বাঁধলেন আর মুখের দিক মৎস্যের শিং-এ বাঁধলেন। তারপর রাজর্ষি সত্যব্রতকে মৎস্যরূপী ভগবান বহু তত্ত্ব উপদেশ দিলেন। সেই তত্ত্বকথা সমেত বিভিন্ন কাহিনীই মৎস্য পুরাণ নামে খ্যাত।

মৎস্য পুরাণ - পৃথ্বীরাজ সেন

 

সেই কাহিনী সংকলন করেন পরাশর নন্দন ব্যাসদেব। পরবর্তীকালে তারই শিষ্য সূত নৈমিষারণ্যে ঋষিগণের কাছে কীর্তন করেন।

মৎস্য পুরাণ – পৃথ্বীরাজ সেন

মৎস্য পুরাণ - পৃথ্বীরাজ সেন

১. কচের সঞ্জীবনী বিদ্যালাভ
২. দেবগুরু বৃহস্পতির ছলনায় দানবদের পরাভব
৩. মিত্রবরুণ ও অগস্ত্যের কাহিনী

মৎস্য পুরাণ - পৃথ্বীরাজ সেন

৪. মহারাজা পুষ্পবাহনের কাহিনী
৫. তারকাসুর বধ

আরও পড়ুনঃ

শ্রীরাম অবতারের কাহিনি | অগ্নি পুরাণ | পৃথ্বী-রাজ সেন | পুরাণ সমগ্র

বলরাম অবতারের কাহিনি | অগ্নি পুরাণ | পৃথ্বী-রাজ সেন। পুরাণ সমগ্র

সূতপুত্ৰ উগ্রশ্রবা কর্তৃক গুরুড় পুরাণের মাহাত্ম্য বর্ণনা । অগ্নি পুরাণ | পৃথ্বী-রাজ সেন

বলাসুরের দেহ থেকে সৃষ্ট রত্নরাজি | অগ্নি পুরাণ | পৃথ্বী-রাজ সেন | পুরাণ সমগ্র

গয়াতীর্থের উৎপত্তি ও তার মাহাত্ম্য বর্ণন | অগ্নি পুরাণ | পৃথ্বী-রাজ সেন | পুরাণ সমগ্র

 

মন্তব্য করুন