মহাভারত [ Mahabharata ] – বিষয়সূচী

মহাভারত সংস্কৃত ভাষায় রচিত প্রাচীন ভারতের মহাকাব্য। এই মহাকাব্যটি হিন্দুশাস্ত্রের ইতিহাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। এটি দ্বাপর যুগে ( হিন্দু শাস্ত্র অনুযায়ী, চার যুগের তৃতীয় যুগ ) ভগবান বিষ্ণু অবতার শ্রীকৃষ্ণ কর্তৃক ধর্ম স্থাপনার ইতিহাস। মহাভারত কথাটির অর্থ হল ভরত বংশের মহান উপাখ্যান। মহাভারতের গল্প এগিয়েছে কৌরব ও পাণ্ডবদের গৃহবিবাদ এবং কুরুক্ষেত্র যুদ্ধের পূর্বাপর ঘটনাবলি নিয়ে। তবে এই গল্পের সাথেই উঠে এসেছে প্রচীন ভারতের সমাজ, দর্শন, ভক্তির বিষয়াদি। আলোচনায় এসে ধর্ম, অর্থ, কাম ও মোক্ষ।

মহাভারত [ Mahabharata ] - বিষয়সূচী, পুথিচিত্রে কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধ, Kurukshetra
পুথিচিত্রে কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধ, Kurukshetra
প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী, মহাভারতের রচয়িতা হিসেবে মানা হয় ঋষি ব্যাসদেব ( কৃষ্ণদ্বৈপায়ন বেদব্যাস )। অধুনা প্রাপ্ত পাঠটির প্রাচীনতম অংশটি মোটামুটি ৪০০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ নাগাদ গুপ্তযুগে রচিত হয়। উক্ত গ্রন্থেই উল্লিখিত হয়েছে যে, ভারত নামে ২৪,০০০ শ্লোকবিশিষ্ট একটি ক্ষুদ্রতর আখ্যান থেকে, বর্তমান মহাভারত মহাকাব্যের কাহিনিটি বিস্তার লাভ করে। ঋষি ব্যাস প্রথমে ৮৮০০ শ্লোক বিশিষ্ট জয়া (জয়) নামক একটি গ্রন্থ রচনা করেন। পরে ঋষি ব্যাসদেবের শিষ্য বৈশম্পায়ন সেই গ্রন্থকে বৃদ্ধি করে ২৪০০০ শ্লোক বিশিষ্ট ভারত গ্রন্থ রচনা করেন। পরে অপর এক শিষ্য উগ্রশ্রবাঃ ভারত গ্রন্থকে বৃদ্ধি করে এক লাখ শ্লোক বিশিষ্ট “মহাভারত” গ্রন্থ রচনা করেন। মহাভারতে এক লক্ষ শ্লোক ও দীর্ঘ গদ্যাংশ রয়েছে। এই মহাকাব্যের শব্দসংখ্যা প্রায় আঠারো লক্ষ। মহাভারত মহাকাব্যটির আয়তন ইলিয়াড ও ওডিসি কাব্যদ্বয়ের সম্মিলিত আয়তনের দশগুণ এবং রামায়ণের চারগুণ।

মহাভারত [ Mahabharata ] – বিষয়সূচী এখানে দেয়া হলো। প্রতিটি ঘটনা আর্টিকেল আকারে এরপর যুক্ত করা হবে। উক্ত আর্টিকেল গুলোর লিংক এই বিষয়সূচীর সাথে যুক্ত করা হবে।

মহাভারত প্রথম খণ্ড

১। বংশাবলী

যযাতির বংশ— শান্তনুর সহিত গঙ্গার বিবাহ—ভীষ্মের জন্ম—ভীষ্মের শিক্ষা ও যৌবরাজ্য প্রাপ্তি—শান্তনু-সত্যবতী—পিতার দুঃখমোচনে ভীষ্ম কৃতসংকল্প—ভীষ্মের ব্রহ্মচর্য-পণ ও ইচ্ছামৃত্যু বর প্রাপ্তি—ভ্রাতার বিবাহার্থে ভীষ্ম-কর্তৃক কাশীরাজের কন্যাত্রয় হরণ–শাল্বকর্তৃক অম্বার প্রত্যাখ্যান—ভীষ্মের প্রতি অম্বার ক্রোধ ও পরশুরামের সাহায্য প্রার্থনা—ভীষ্ম-পরশুরাম-যুদ্ধ—ভীষ্মবধার্থে শিখণ্ডীরূপে অম্বার পুনর্জন্ম-ব্যাস-কর্তৃক কুরুবংশ রক্ষা—ধৃতরাষ্ট্র পাণ্ডু ও বিদুরের জন্ম।

২। পাণ্ডব ও ধার্তরাষ্ট্রদের জন্মবৃত্তান্ত

ধৃতরাষ্ট্র পাণ্ডু ও বিদুরের শিক্ষা–ধৃতরাষ্ট্রের বিবাহ-দুর্বাসার নিকট কুন্তীর মন্ত্রপ্রাপ্তি—কর্ণের জন্ম—কুম্ভীর স্বয়ম্বর ও পাণ্ডুর সহিত বিবাহ-বিদুরের বিবাহ—পাণ্ডুর দিগ্বিজয়—পাণ্ডু কর্তৃক ঋষিপুত্র বধ—পাণ্ডুর প্রব্রজ্যাগ্রহণ— দুর্বাসা-দত্ত-মন্ত্রে দেবগণকে আহ্বান—পাণ্ডবগণের উৎপত্তি—ধার্তরাষ্ট্রগণের জন্ম–দুর্যোধনের জন্মে দুর্ণিমিত্ত—পাণ্ডুর মৃত্যু ও মাদ্রীর সহমরণ—পাণ্ডু ও মাদ্রীর সৎকার—সত্যবতী অম্বিকা ও অম্বালিকার দেহত্যাগ।

৩। পাণ্ডব ও ধার্তরাষ্ট্রগণের বাল্যজীবন ধার্তরাষ্ট্রগণের প্রতি ভীমের অত্যাচার—দুর্যোধনের মনোবিকার নাগলোকে ভীম—কুম্ভীর দুশ্চিন্তা–কৃপাচার্যের নিকট কুমারগণের অস্ত্রশিক্ষারম্ভ—দ্রোণাচার্যের আগমন ও আত্মপরিচয়—দ্রোণ-দ্রুপদ বিবাদের ইতিহাস—দ্রোণহস্তে কুমারগণকে সমর্পণ—কুমারগণের শিক্ষা—অর্জুনের উৎকর্ষ লাভ-দ্রোণ-কর্তৃক একলব্যের প্রত্যাখ্যান—একলব্যের গুরুদক্ষিণা প্রদান—কুমারগণের শিক্ষাপ্রণালী-কুমারগণের অস্ত্রবিদ্যা পরীক্ষা—অর্জুনের শ্রেষ্ঠত্ব—কর্ণের ঈর্ষা ও কর্ণার্জুন বিবাদের সূত্রপাত-কর্ণের অঙ্গরাজ্য লাভ ও দুর্যোধনের সহিত চিরসখ্য স্থাপন—দ্রোণের গুরুদক্ষিণা—দ্রোণ কর্তৃক দ্রুপদের অর্ধরাজ্য গ্রহণ—দ্রোণবধার্থে ধৃষ্টদ্যুম্নের উৎপত্তি।

ভারতের কর্ণাটকের মুরুদেশ্বর মন্দিরে রূপায়িত ব্যাস ও গণেশের মহাভারত রচনা, Karwar Pictures Yogesa
ভারতের কর্ণাটকের মুরুদেশ্বর মন্দিরে রূপায়িত ব্যাস ও গণেশের মহাভারত রচনা, Karwar Pictures Yogesa

৪। পাণ্ডবদের প্রতি ধার্তরাষ্ট্রদের উৎপীড়ন

পাণ্ডবদের ধৃতরাষ্ট্রের মন্ত্রণা—দুর্যোধনের ঈর্ষা অভিসন্ধি— ধৃতরাষ্ট্র- দুর্যোধন সম্বাদ—বারণাবতে পাণ্ডবগণের নির্বাসন-দুর্যোধনের পুরোচনকে নিয়োগ— পাণ্ডবগণের প্রতি উপদেশ-বারণাবতে পাণ্ডবগণ—জতুগৃহে বাস-জতুগৃহে সুড়ঙ্গ খনন–জতুগৃহ নিষ্ক্রমণ—হস্তিনাপুরে পাণ্ডব-মৃত্যু-সংবাদ—পাণ্ডব গণের পলায়ন পথে ক্লেশভোগ—হিড়িম্ব-হিড়িম্বা— ভীম-কর্তৃক বধ—হিড়িম্বার ঘটোৎকচের জন্ম–একচক্রায় পাণ্ডবগণ-বকরাক্ষস তন্নিমিত্ত ব্রাহ্মণ পরিবারের বিপদ—কুম্ভীকর্তৃক বক-বধার্থে ভীমের নিয়োগ—যুধিষ্ঠিরের বক-বধ—পাণ্ডবগণের একচক্রা সহিত অর্জুনের সখ্য-পাণ্ডবগণের

৫। পাণ্ডবগণের বিবাহ ও রাজ্যপ্রাপ্তি পাঞ্চালে পাণ্ডবগণ—দ্রৌপদী স্বয়ম্বরা—নরপতিগণের বিফল লক্ষ্যভেদ-প্রয়াস— অর্জুনকর্তৃক লক্ষ্যভেদ—পঞ্চ ভ্রাতায় দ্রৌপদী-গ্রহণ সম্বন্ধে পাণিগ্রহণসম্বন্ধে মন্ত্রণা—দ্রুপদের পাণ্ডবগণের প্রকৃত পরিচয় লাভ—পাণ্ডবগণের পাঞ্চালরাজের আশ্রয় প্রাপ্তি—দ্রৌপদীর আলোচনা-ব্যাসবাক্যে দ্রুপদের সম্মতি—দ্রৌপদীর বিবাহ হস্তিনাপুরে বিবাহের সংবাদ—পাণ্ডবদের সম্বন্ধে কৌরবগণের মন্ত্রণা—কর্ণ-দুর্যোধনের অভিপ্রায়—ভীষ্ম-দ্রোণের সদুপদেশ—পাণ্ডবগণকে অর্ধ রাজ্যদানে ধৃতরাষ্ট্রের সম্মতি—পাণ্ডবগণের হস্তিনাপুরে আগমন—ইন্দ্রপ্রস্থ পত্তন—দ্রৌপদী সম্বন্ধে পাণ্ডবদের নিয়ম সংস্থাপন—নিয়ম অর্জুনের সহিত অর্জুনের বিবাহ-চিত্রাঙ্গদার সহিত অর্জুনের বিবাহ-বক্রবাহনের জন্ম–দ্বারকায় অর্জুন–সুভদ্রাহরণ-অর্জুনের সময়পালন সমাপ্ত—খাণ্ডব সুভদ্রার্জুন—খাণ্ডবপ্রস্থে কৃষ্ণের আগমন—অগ্নির নিকট কৃষ্ণার্জুনের অস্ত্রপ্রাপ্তি—খাণ্ডবদাহ ময়দানবকে যুধিষ্ঠিরের নিয়োগ।

৬। পাণ্ডবদের সাম্রাজ্যপ্রাপ্তি

যুধিষ্ঠিরের সভা নির্মাণ–সভায় মহর্ষি নারদ-রাজসূয় যজ্ঞসম্বন্ধে কথোপকথন কৃষ্ণ-কর্তৃক জরাসন্ধের বৃত্তান্ত কথন—জরাসন্ধবধ-সম্বন্ধে বিচার—মগধে কৃষ্ণ ও ভীমার্জুন—জরাসন্ধবধের উদ্যোগ—কৃষ্ণ-জরাসন্ধ সম্বাদ— ভীম-কর্তৃক জরাসন্ধ বধ— মগধরাজ্য বশীভূত—পাণ্ডবগণের দিগ্বিজয়—রাজসূয় যজ্ঞারম্ভ— হস্তিনাপুরে নিমন্ত্রণ যুধিষ্ঠিরের দীক্ষা—কৃষ্ণকে অর্ঘ্য প্রদানের প্রস্তাব-কৃষ্ণের সম্মানে শিশুপালের আপত্তি— তদুপলক্ষ্যে বচসা—শিশুপাল কর্তৃক কৃষ্ণের অবমাননা—কৃষ্ণ কর্তৃক শিশুপাল বধ— রাজসূয় যজ্ঞ সমাপ্তি।

৭। পাণ্ডবদের রাজ্যহরণ

যুধিষ্ঠিরের সভায় দুর্যোধন—দুর্যোধনের ঈর্ষা—শকুনির সহিত দুর্যোধনের মন্ত্রণা–অক্ষক্রীড়ার প্রস্তাব—বিদুরের আপত্তি—ধৃতরাষ্ট্রের সম্মতি—ক্রীড়ার্থে যুধিষ্ঠিরকে আহ্বান—দ্যুতারস্ত— যুধিষ্ঠিরের মত্ততা ও সর্বস্ব হরণ—দ্যুতমুখে যুধিষ্ঠির-কর্তৃক ভ্রাতা ও পত্নী বিসর্জন ধার্তরাষ্ট্রগণের মত্ততা ও দ্রৌপদীকে সভায় আহ্বান—ভীমসেনের ক্রোধ-কর্ণের কটূক্তি দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণ—ভীমসেনের নিদারুণ প্রতিজ্ঞা—পাণ্ডবগণের দাসত্বমোচন- বনবাসপণে পুনরায় দ্যূতক্রীড়া—ধৃতরাষ্ট্র-গান্ধারী সম্বাদ—ধার্তরাষ্ট্রগণের আস্ফালন—পাণ্ডবগণের প্রতিশোধ-প্রতিজ্ঞা—পাণ্ডবদের বনগমন—ধৃতরাষ্ট্রের শঙ্কা।

৮। পাণ্ডবদের বনবাস

পাণ্ডবনির্বাসনে পৌরজনের বিলাপ—ব্রাহ্মণগণের সহগমন—দ্রৌপদীর অক্ষয়স্থালীলাভ ধৃতরাষ্ট্র-বিদুর-বিবাদ—বিদুরের পাণ্ডবদিগকে উপদেশ—ধৃতরাষ্ট্র-বিদুর পুনর্মিলন কাম্যকবনে যাদবগণ—দ্রৌপদীকে কৃষ্ণের আশ্বাস প্রদান— যাদবগণের প্রস্থান—যুধিষ্ঠিরকে দ্রৌপদীর তিরস্কার—যুধিষ্ঠিরের বিলাপ-ব্যাসের উপদেশ—অস্ত্রলাভার্থ অর্জুনের হিমাচলে প্রস্থান—ইন্দ্ৰ-অর্জুন-সম্বাদ—কিরাতার্জুন— মহাদেবের বরপ্রদান—অর্জুনের দিব্যাস্ত্র লাভ অর্জুনবিরহে পাণ্ডবগণের দুঃখ—পাণ্ডবগণের তীর্থযাত্রা—প্রভাস তীর্থে আগমন— গন্ধমাদন আরোহণ—ঘটোৎকচের সাহায্যে বদরিকাশ্রমে গমন—দ্রৌপদীর নিমিত্ত ভীমের পুষ্পান্বেষণ-হনুমানের সহিত ভীমের সাক্ষাৎ—ভীমের কুবেরালয়ে গমন—যক্ষগণের সহিত ভীমের বিবাদ—ইন্দ্রালয় হইতে অর্জুনের প্রত্যাবর্তন—নিবাতকবচ পরাজয়ের বৃত্তান্ত—গন্ধমাদন হইতে পাণ্ডবদের প্রত্যাবর্তন—কৃষ্ণ-সভ্যভামা-সম্বাদ—দ্বৈতবনে পাণ্ডবগণের আবাস।

৯। ধার্তরাষ্ট্রগণের রাজ্যচালনা অর্জুনের অস্ত্রলাভে ধৃতরাষ্ট্রের ভীতি—কর্ণ-দুর্যোধনের পাণ্ডবনিগ্রহ অভিসন্ধি— দুর্যোধনের ঘোষপল্লী যাত্রা—দুর্যোধন-চিত্রসেন-সংঘর্ষ-গন্ধর্বরাজ-কর্তৃক দুর্যোধনের লাঞ্ছনা—যুধিষ্ঠির কর্তৃক ভীমার্জুন নিয়োগ ও দুর্যোধনের মুক্তি—দুর্যোধনের পরিতাপ ও প্রায়োপবেশন— দুর্যোধনের পুর-প্রত্যাবর্তন—ভীষ্মের তিরস্কার কর্ণের দিগ্বিজয়—দুর্যোধনের যজ্ঞ অর্জুনবধার্থে কর্ণের ব্রত গ্রহণ— যুধিষ্ঠিরের দুশ্চিন্তা– ইন্দ্র কর্তৃক কর্ণের বঞ্চনা—কর্ণের সহজাত কবচকুণ্ডল দান ও অমোঘ-শক্তি লাভ।

১০। বনবাসাত্তে অজ্ঞাতবাসের উদ্যোগ কাম্যকবনে জয়দ্রথের আগমন— জয়দ্রথের দুষ্ট কামনা—জয়দ্রথ দ্রৌপদী-সম্বাদ— জয়দ্রথ-কর্তৃক দৌপদীহরণ—পাণ্ডবগণ কর্তৃক জয়দ্রথকে আক্রমণ—জয়দ্রথের সৈন্যক্ষয়—জয়দ্রথের পলায়ন—ভীম কর্তৃক জয়দ্রথের লাঞ্ছনা-জয়দ্রথের মুক্তি, তপস্যা ও পাণ্ডব-বিজয়-বর-প্রাপ্তি—অজ্ঞাতবাসের আয়োজন—পাণ্ডবগণের ছদ্মবেশ নির্বাচন ধৌম্যের উপদেশ—সমীবৃক্ষে অস্ত্রাদি রক্ষা—পাণ্ডবগণের বিরাটনগর প্রবেশ।

১১। অজ্ঞাতবাস

সভাসদ বেশে যুধিষ্ঠির—সুপকার বেশে ভীম–সৈরিষ্ক্রীরূপে দ্রৌপদী—গোপ বেশে সহদেব নপুংসকরূপে অর্জুন—অশ্বপাল বেশে নকুল—পাণ্ডবগণের স্বচ্ছন্দে অজ্ঞাতবাস— মল্লযোদ্ধা রূপে ভীম—কীচক ও দ্রৌপদী—কীচকালয়ে দ্রৌপদী-প্রেরণ—কীচক কর্তৃক দ্রৌপদীর অপমান—যুধিষ্ঠির কর্তৃক ভীমকে নিবারণ—দ্রৌপদীর ক্রোধ—ভীমের নিকট দ্রৌপদীর বিলাপ—ভীমের উত্তেজনা ও প্রতিশোধ-অঙ্গীকার—কীচক বধ—উপকীচক হস্তে দ্রৌপদীর বিপদ—ভীম-কর্তৃক দ্রৌপদীর উদ্ধার—অজ্ঞাতবাসের সময় অবসান।

১২। পাণ্ডবগণের অজ্ঞাতবাস সমাপন পাণ্ডবগণকে দুর্যোধনের ব্যর্থ অনুসন্ধান—কৌরবগণের মন্ত্রণা-বিরাটরাজের ধেনু অপহরণ অভিসন্ধি—ত্রিগর্তরাজ-কর্তৃক বিরাটনগর আক্রমণ—ত্রিগতরাজের পরাজয়— কৌরবগণের বিরাটনগর আক্রমণ—উত্তরের আস্ফালন—অর্জুন কর্তৃক উত্তরের সারথ্য গ্রহণ—উত্তরের ভীতি—অর্জুনের যুদ্ধসংকল্প—সমীবৃক্ষ হইতে অস্ত্র উদ্ধার – উত্তরের নিকট অর্জুনের আত্মপরিচয় দান–কর্ণ-দুর্যোধনের সহিত দ্রোণাদির বচসা—ভীষ্মের উপদেশ— অর্জুনের আগমন ও যুদ্ধারও—কর্ণার্জুন— অর্জুন দ্রোণ-অর্জুন অশ্বত্থামা পুনরায় অর্জুন-কর্ণ অর্জুন-কর্তৃক ছয় রথীর পরাজয় ও গোধন উদ্ধার–বিরাটনগরে বিজয় সংবাদ—বিরাট-রাজ কর্তৃক যুধিষ্ঠিরের অবমাননা অর্জুন ও উত্তরের প্রত্যাবর্তন—পাণ্ডবগণের আত্মপ্রকাশ মন্ত্রণা।

১৩। পাণ্ডবদের আত্মপ্রকাশ ও মন্ত্রণা পাণ্ডবগণের আত্মপ্রকাশ—পাণ্ডব-মৎস্য সন্ধি-অভিমন্যুর সহিত উত্তরার বিবাহ পাণ্ডবপক্ষের মন্ত্রণা—কৃষ্ণের উক্তি-বলদেবের উক্তি সাত্যকির উক্তি-দ্রুপদের উপদেশে কৌরব-সভায় দ্রুত প্রেরণ—উভয় পক্ষের কৃষ্ণ প্রার্থনা-অর্জুনের কৃষ্ণ-সারথ্য ও দুর্যোধনের নারায়ণীসেনা লাভ–শল্যরাজকে দুর্যোধনের স্বপক্ষে আনয়ন—যুধিষ্ঠিরের নিকট শল্যের অঙ্গীকার—উভয় পক্ষের বলসংগ্রহ—কৌরব সভায় পাণ্ডবদূত—ধৃতরাষ্ট্র কর্তৃক সঞ্জয়কে পাণ্ডব-সমীপে প্রেরণ।

মহাভারত দ্বিতীয় খণ্ড

১। শান্তির চেষ্টা

সন্ধির প্রস্তাব লইয়া সঞ্জয়ের গমন—পাণ্ডবশিবিরে সঞ্জয়—পাণ্ডবদের প্রস্তাব—সঞ্জয়ের প্রত্যাবর্তন—ধৃতরাষ্ট্রের দ্বিধা-বিদুরের মন্ত্রণা—কৌরব সভায় আলোচনা—ধৃতরাষ্ট্রের শাস্তির ইচ্ছা—দুর্যোধনের প্রতিবাদ ও কর্ণের শ্লাঘা—ভীষ্মের ভর্ৎসনায় কর্ণের অস্ত্র ত্যাগ—কৃষ্ণের সহিত পাণ্ডবগণের মন্ত্রণা— শান্তির নিমিত্ত কৃষ্ণের দৌত্য—ভীমের যুক্তি—অন্য পাণ্ডবগণের যুক্তি—দ্রৌপদীর উত্তেজনা— কৃষ্ণের হস্তিনাপুর যাত্রা—হস্তিনাপুরে কৃষ্ণের অভ্যর্থনার আয়োজন—দুর্যোধনের হস্তিনাপুরে কৃষ্ণ—কুত্তী-সমীপে সম্বাদ—বিদুর-ভবনে কৃষ্ণ-কৃষ্ণকর্তৃক সন্ধির প্রস্তাব—কৃষ্ণ-দুর্যোধন সম্বাদ—ভীষ্ম-দ্রোণকর্তৃক কৃষ্ণবাক্য সমর্থন—দুর্যোধনের অসম্মতি ও অশিষ্ট ভাবে সভ্যত্যাগ—গান্ধারী-দুর্যোধন সম্বাদ—দুর্যোধনের দুরভিসন্ধি ও সভাভগ—পাণ্ডবদের প্রতি কুম্ভীর উপদেশ—কৃষ্ণ-কর্ণ সম্বাদ—কৃষ্ণের প্রত্যাগমন—কুন্তী-কর্ণ সম্বাদ—পাণ্ডব রক্ষা সম্বন্ধে কর্ণের প্রতিজ্ঞা।

যুদ্ধের আয়োজন

পাণ্ডবদের যুদ্ধচিত্তা—সেনানায়ক নির্বাচন— যুধিষ্ঠিরের আয়োজন—দুর্যোধনের আয়োজন—যুদ্ধধর্ম নির্ধারণ-উলুককে দূতরূপে প্রেরণ—দুর্যোধনের প্রেরিত কটুবাক্য—পাণ্ডবগণের প্রত্যুত্তর—উভয়পক্ষের রণসজ্জা— যুধিষ্ঠিরকে অর্জুনের আশ্বাসপ্রদান—উভয়পক্ষের ব্যূহ রচনা—যুদ্ধ-মধ্যস্থলে কৃষ্ণার্জুন—অর্জুনের বিষাদ-কৃষ্ণের উপদেশে অর্জুনের বলসঞ্চার-ব্যাস হইতে সঞ্জয়ের বরলাভ।

৩। যুদ্ধারম্ভ

যুদ্ধারম্ভে যুধিষ্ঠিরের শিষ্টাচার–দুর্যোধনের পক্ষে কর্ণের যুযুৎসুকর্তৃক পাণ্ডবপক্ষ অবলম্বন—যুদ্ধারম্ভ—বিরাট তনয়ের পতন—যুদ্ধের প্রথম দিনাত্তে—দ্বিতীয় দিবসারম্ভ—ভীমসেনের অদ্ভুত যুদ্ধ—কৌরব সৈন্য পরাম্মুখ—ভীষ্মের প্রতি দুর্যোধনের দোষারোপ—যুদ্ধের সপ্তম দিবস—ভীমকর্তৃক ধার্তরাষ্ট্রনিপাতন—ধৃতরাষ্ট্রের পরিতাপ—যুদ্ধের অষ্টম দিবস—অর্জুন-পুত্র ইরাবানের রাক্ষস ভীমার্জুনের অদ্ভুত যুদ্ধ দুর্যোধনকর্তৃক ভীষ্মের লাঞ্ছনা—ভীষ্মের ভীষণ যুদ্ধ-অর্জুনের মৃদু যুদ্ধ কৃষ্ণের ক্রোধ—যুধিষ্ঠিরের দুশ্চিন্তা কৃষ্ণের উপদেশে পাণ্ডবগণ ভীষ্মের শরণাগত—ভীষ্মের স্বীয় বধোপায় কথন—যুদ্ধের দশম দিবসে শিখণ্ডি—ভীষ্মের পতন—ধৃতরাষ্ট্রের নিকট ভীষ্ম পরাজয় কথন— অর্জুনরক্ষিত শিখণ্ডির যুদ্ধ—ধৃতরাষ্ট্রের বিলাপ–শর শয্যায় ভীষ্ম—বীরগণকর্তৃক ভীষ্মের সম্বর্ধনা—ভীষ্ম-বর্ণ মিলন—ভীষ্ম কর্তৃক শান্তির শেষ চেষ্টা।

যুদ্ধপ্রবাহ

কর্ণের পুনরায় অস্ত্রধারণ—সেনাপতি দ্রোণাচার্য—যুদ্ধের একাদশ দিবস—শল্য ভীমসেন—যুধিষ্ঠিরকে গ্রহণার্থে অর্জুনা পসরণের ষড়যন্ত্র—অর্জুন ত্রিগতগণ— অর্জুনকর্তৃক ভগদত্ত বধ—দ্রোণের আক্রমণে যুধিষ্ঠিরের পলায়ন-দ্রোণের চক্রব্যূহ রচনা-ব্যূহমধ্যে অভিমন্যু—জয়দ্রথ কর্তৃক পাণ্ডবগণ নিবারিত–অভিমন্যুর আশ্চর্য যুদ্ধ—সপ্তরথীকর্তৃক অভিমন্যু বধ—পাণ্ডবগণের পরিতাপ-অর্জুনের শোক-অর্জুনের জয়দ্রথ বধ প্রতিজ্ঞা— সিন্ধুরাজের ও দ্রোণের

অতিক্রম—দুর্যোধনের ভীতি—দুর্যোধনের গাত্রে অক্ষয় কবচ বন্ধন-অর্জুন-দুর্যোধন যুধিষ্ঠিরের উদ্বেগ—অর্জুনরক্ষার্থে সাত্যকি ও ভীমকে প্রেরণ—কর্ণকর্তৃক ভীমের পরাজয়— সাত্যকি-ভূরিশ্রবা—ভূরিশ্রবার প্রতি অর্জুনের বিপরীতাচরণ-অর্জুনের জয়দ্রথ-প্রাপ্তি কৌরবগণের ভ্রান্তি—জয়দ্রথের মৃত্যু—দুর্যোধন ও দ্রোণের পরস্পর-তিরস্কার-কর্ণ-কৃপ বিবাদ—কর্ণের সহিত ঘটোৎকচের যুদ্ধ—ঘটোৎকচ বধার্থে কর্ণের অমোঘশক্তি পরিত্যাগ-রাত্রি যুদ্ধ-দ্রোণকর্তৃক বিরাট ও দ্রুপদ বধ – দ্রোণের শক্তিনাশার্থে প্রবঞ্চনা—অশ্বত্থামা-হত-ইতি-গজ—হস্তিনায় দ্রোণের মৃত্যু সংবাদ।

৫। যুদ্ধাবসান

কর্ণের সেনাপতিত্ব—যুধিষ্ঠির কর্তৃক অর্জুন নিয়োগ-কর্ণ-নকুল-কর্ণের শেষ যুদ্ধ সংকল্প শলাকর্তৃক কর্ণের সারথ্য গ্রহণ—ইচ্ছানুরূপ বাক্য প্রয়োগ সম্বন্ধে শূল্যের নিয়ম—শল্যের শাঠ্যে কর্ণের তেজোহানি–কর্ণ-ভীম–কর্ণ-যুধিষ্ঠির—শিবিরে যুধিষ্ঠির অর্জুনের আগমন ও যুধিষ্ঠিরের ক্ষোভ-অর্জুন-যুধিষ্ঠিরবিবাদ— অর্জুনের কর্ণবধ-প্রতিজ্ঞা ভীম-দুঃশাসন – কর্ণার্জুন যুদ্ধ-কর্ণের রথ অকর্মণ্য-কর্ণের মৃত্যু—দুর্যোধন-কৃপ সম্বাদ-অশ্বত্থামার অবিচলিত উৎসাহ-শল্যের সৈন্যাপত্য–শল্যবধার্থে যুধিষ্ঠিরের উদ্যম— শল্যের মৃত্যু-ভীমকর্তৃক ধার্তরাষ্ট্র সংহার-সহদেব শুকুনি—কৌরব-সৈন্য নিঃশেষিত প্রায়–যুযুৎসুর হস্তিনাপুরে প্রত্যাগমন।

৬। যুদ্ধ শেষ

হ্রদমধ্যে দুর্যোধন-দুর্যোধনের উদ্দেশ্যে পাণ্ডবগণ—দুর্যোধনকে যুধিষ্ঠিরের তিরস্কার—এক পাণ্ডবের সহিত দুর্যোধনের যুদ্ধ নির্ধারণ-বলরামের আগমন—ভীম ও দুর্যোধনের শেষ যুদ্ধ—দুর্যোধনের উরু ভগ-বলদেবের ক্রোধ ও কৃষ্ণকর্তৃক সান্ত্বনা—কৃষ্ণ-দুর্যোধন-সম্বাদ পাণ্ডবগণের স্বস্থানে প্রস্থান—দুর্যোধন-সমীপে কৌরবপক্ষীয় বীরত্রয়—দুর্যোধনের শেষ বাক্য ও অশ্বত্থামার উত্তেজনা-অশ্বত্থামার সেনাপতিত্ব-অশ্বত্থামার অভিসন্ধি পাণ্ডব-শিবিরে অশ্বত্থামা-অশ্বত্থামার প্রতিশোধে দুর্যোধনের তুষ্টি-দুর্যোধনের দেহত্যাগ।

৭। যুদ্ধান্তে

অন্ধরাজের শোক—ধৃতরাষ্ট্রাদির কুরুক্ষেত্রে যাত্রা পাণ্ডবগণের সহিত ধৃতরাষ্ট্রের সাক্ষাৎ-ধৃতরাষ্ট্র ও গান্ধারীর ক্রোধাপনয়ন কুরুক্ষেত্রে গান্ধারীর বিলাপ-বীরগণের সৎকার—কুম্ভীকর্তৃক কর্ণের পরিচয় দান—রাজ্যভোগে যুধিষ্ঠিরের অনাস্থা—ভ্রাতৃগণের অনুরোধ—যুধিষ্ঠিরের বৈরাগ্য যুধিষ্ঠিরের প্রতি সকলের আশ্বাসবাণী—যুধিষ্ঠিরের রাজ্যগ্রহণে সম্মতি।

৮। পাণ্ডবগণের একাধিপত্য

পাণ্ডবগণের পুরপ্রবেশ—স্বরাজ্যে যুধিষ্ঠিরের পুনরভিষেক–যুধিষ্ঠিরের রাজ্যচালনা ব্যবস্থা—ভীষ্মের নিকট পাণ্ডবগণ—ভীষ্মকর্তৃক উপদেশ দান—ভীষ্মের দেহত্যাগ-যুধিষ্ঠিরের অশ্বমেধ-যজ্ঞের মন্ত্রণা-কৃষ্ণের প্রতিগমন—দ্বারকায় কৃষ্ণ কৃষ্ণকর্তৃক কুরুক্ষেত্র-যুদ্ধ-বিবৃতি।

১। অশ্বমেধ যজ্ঞ

যজ্ঞের উপকরণ সংগ্রহ—পরীক্ষিতের জন্ম ও কৃষ্ণকর্তৃক রক্ষা-যজ্ঞের উদ্যোগ অশ্বমোচন—অর্জুন-ত্রিগতরাজ—সিন্ধুদেশে অর্জুন-অর্জুন বজ্রবাহন- অর্জুনের পতন ও উলুপীকর্তৃক প্রাণদান—অশ্বের প্রত্যাগমন— যজ্ঞারম্ভ—অশ্বমেধ-যজ্ঞ সমাপন।

১০। পরিণাম

যুধিষ্ঠির কর্তৃক ধৃতরাষ্ট্রের শুশ্রূষা ধৃতরাষ্ট্রের বনগমন সংকল্প ধৃতরাষ্ট্রকে পরিত্যাগ করিতে যুধিষ্ঠিরের আপত্তি—ব্যাসদেবের অনুরোধে যুধিষ্ঠিরের সম্মতিদান-প্রজাগণের নিকট ধৃতরাষ্ট্রের বিদায়গ্রহণ—প্রজাগণের সম্ভাপ—অন্ধরাজের উদ্যোগ—ধৃতরাষ্ট্রের নিষ্ক্রমণ— কুম্ভীর সহগমন—ধৃতরাষ্ট্রাদিকে দর্শনার্থে পাণ্ডবগণের বনগমন—ধৃতরাষ্ট্রের আশ্রমে পাণ্ডবগণ-বিদুরের দেহত্যাগ—পাণ্ডবগণের নগরে প্রত্যাগমন—ধৃতরাষ্ট্রাদির স্বর্গলাভ।

১১। যদুবংশ ধ্বংস

যাদবগণের ব্যভিচার—তাহাদিগকে মুণিগণের শাপপ্রদান—যাদবগণের বুদ্ধি বিপর্যয় ও কলহ—যাদবগণের পরস্পরকে সংহার-কৃষ্ণের ঔদাস্য-বলরামের নিকট গমন—বলরাম কৃষ্ণের মৃত্যু—দ্বারকায় অর্জুন—যাদবগণ-সম্বন্ধে অর্জুনের শেষ কর্তব্য পালন বসুদেবের স্বর্গলাভ—যাদব মহিলা লইয়া অর্জুনের দ্বারকা ত্যাগ—তস্কর কর্তৃক আক্রমণ ও অর্জুনের ব্যর্থ গাণ্ডীব—অর্জুনের শোক ও ব্যাসদেবের উপদেশ।

১২। মহাপ্রস্থান

পাণ্ডবগণের বৈরাগ্য প্রস্থানের হিমালয় পাণ্ডবগণ—পথিমধ্যে দ্রৌপদী পাণ্ডব চতুষ্টয়ের পতন—যুধিষ্ঠর ও কুকুর–যুধিষ্ঠিরের সশরীরে স্বর্গারোহণ— যুধিষ্ঠিরের নরক দর্শন—স্বর্গে মিলন।

Hinduism মহাভারত [ Mahabharata ] - বিষয়সূচী

 

আরও পড়ুন:

“মহাভারত [ Mahabharata ] – বিষয়সূচী”-এ 3-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন